সর্বশেষ

কফের সাথে যে কারনে রক্ত আসে

কফের সাথে যে কারনে রক্ত আসে

শীতকাল মানেই কমবেশি কাশির সমস্যা হয়। অনেকের আবার কাশতে কাশতে কফের সঙ্গে রক্ত বেরিয়ে আসতে পারে। আর রক্ত আসলে একে কোনো ভাবেই অবহেলা করা যাবে না। কিন্তু সঠিক সময়ে চিকিৎসা নিলে এই সমস্যা সহজেই কমানো সম্ভব।

কাশি বা কফের সঙ্গে রক্ত যাওয়াকে বলা হয় হিমোপটিসিস। তবে অনেকেই মনে করেন মুখ দিয়ে রক্ত যাওয়া মানেই টিবি বা যক্ষ্মা রোগের লক্ষণ। তবে সব সময়ে কিন্তু এমনটি নয়।

কাশির সঙ্গে রক্ত কখন যায়?

মূলত ফুসফুস এবং শ্বাসনালির যেকোনো অংশ থেকে রক্তক্ষরণ হলেই, তা কাশির সঙ্গে কফের মাধ্যমে বেরিয়ে আসে। কারণ কফের উৎপত্তি হয় এখানে।

তাই শুধুমাত্র টিবি বা যক্ষ্মা রোগ নয়, অন্য কারণেও যেকোনো কারণে ফুসফুসের রক্তনালির ক্ষতি হলে তা থেকে রক্ত বের হতে পারে। অন্য যে কারণগুলোতে রক্ত যেতে পারে তা জেনে নিন।

ব্রঙ্কাইটিস

ব্রঙ্কাইটিস হলো শ্বাসনালির প্রদাহ। এটি বেশির ভাগ ক্ষেত্রে সহজেই সেরে যায়। তবে চিকিৎসকের কাছে যাওয়া খুবই প্রয়োজন।

ব্রঙ্কিয়েকটেসিস

এই অসুখে শ্বাসনালির স্থায়ী ক্ষতি হয়। এক্ষেত্রে শ্বাসনালির মধ্যে বার বার সংক্রমণ হয়। সেই কারণে রোগীকে প্রায় সারাজীবনই কষ্টে ভুগতে হয়।

নিউমোনিয়া

এটি ফুসফুসের একধরণের প্রদাহ এবং সংক্রমণ। বিভিন্ন কারণে এই অসুখ হতে পারে। ডায়াবেটিস থাকলে সমস্যা আরো মারাত্মক আকার ধারণ করতে পারে।

ফুসফুসের ক্যান্সার

শুধু ফুসফুসেই যে এই ক্যান্সার হতে পারে এমন নয়। অর্থাৎ শরীরের অন্য কোনো অংশের ক্যান্সারও ফুসফুসে ছড়িয়ে যেতে পারে। এছাড়া হার্টের ভাল্বের কিছু সমস্যা, হার্টের প্রদাহ হলেও কাশির সঙ্গে রক্তপাত হতে পারে।

নারীদের ক্ষেত্রে

নারীদের ক্ষেত্রে ইউটেরাসের ভিতরের আবরণ মাঝে মাঝে ফুসফুসে চলে আসে। ফলে প্রতিবার স্বাভাবিক মাসিকের সময় হলে সেখান থেকে রক্তপাত হয়, যা কফের সঙ্গে বেরিয়ে আসে।

অন্য কারণ

আবার অন্ত্রের কৃমি ফুসফুসে গেলেও রক্তপাতের আশঙ্কা থাকে। হৃদরোগের চিকিৎসায় যারা অ্যাসপিরিন জাতীয় ওষুধ নিয়মিত দীর্ঘদিন ধরে খেলে শরীরের যেকোন জায়গার পাশাপাশি ফুসফুস থেকেও রক্তপাতের আশঙ্কা বাড়ে। কোকেন জাতীয় মাদক দ্রব্য ব্যবহারকারীর ক্ষেত্রেও এই একই আশঙ্কা দেখা যায়। এছাড়া আঘাতজনিত কারণেও রক্তপাতের আশঙ্কা থাকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*