সর্বশেষ

মালয়েশিয়ায় ছাত্রলীগ নেতার মহানুভবতা

মালয়েশিয়ায় ছাত্রলীগ নেতার মহানুভবতা
ছেলেটার নাম সাজ্জাদ বাড়ী যশোর জেলার বাঘারপাড়া থানায়, বাঘারপাড়া থানার সাবেক ছাত্রলীগ নেতা Krishibid Anaet Hossain Liton ভাই আনুমানিক ১ মাস আগে আমাকে ফোন করে ছেলেটার কথা জানাই যে সে বাইক এক্সিডেন্ট করে ফিমারে ফ্রাকচার ও হাতের কনুয়ের ফ্রাকচার নিয়ে জহুরবারু একটা হাসপাতালে আছে দেখার মত কেউ নাই, তখন আমি সেখানে গিয়ে দেখি খুব মানবেতর অবস্থায় জীবনযাপন করছে তাই আমার সাথে করে কুয়ালালামপুর নিয়ে আসি, ভালো চিকিৎসার জন্য সারদাং হাসপাতালে ভর্তি ও করি কিন্তু ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী আনুমানিক ৩-৪ লক্ষ টাকা লাগবে সকল চিকিৎসা সম্পুর্ন করতে কিন্তু এত টাকা পরিবারের পক্ষ থেকে যোগান দেওয়া সম্ভব নয়।
তার বাবা আমাকে ফোন দিয়ে শুধু এইটুকু বলেছিল যে আমি যেটা ভালো বুঝি সেটাই যেন করি, দেশে পাঠাতে হলে ও যেন পাঠিয়ে দেই কিন্তু সেখানেও জটিলতা আছে ভিসা সংক্রান্ত কারনে। মেডিকেল সাইন্সে আমার মোটামুটি ভালো ধারনা আছে তাই নিজেই সিদ্ধান্ত নিলাম বাসায় রেখে চিকিৎসা করানোর আর আমার পক্ষ থেকে সব চেয়ে বড় যে মেডিসিন আমি তাকে দিয়েছি সেটা হচ্ছে সাহস, মনোবল আর অনুপ্রেরণা আর সত্যি এটাতে অনেক কাজ হয়েছে। সে আজ নিজে নিজে হাটতে শুরু করেছে। বিদেশে সব রকমের হেল্প করলেও কেউ কাউকে বাসায় রাখতে চাইনা কিন্তু ওর মালয়েশিয়াতে আপন কেউ না থাকার কারনে আমার বাসাতেই থাকতে দিয়েছি। প্রথম কিছুদিন কারো হেল্প ছাড়া নিজের পা নড়াচড়া করতে পারত না উঠে দাড়ানো তো দুরের কথা তাহলে বাকি কাজ গুলো কিভাবে করবে।
আমি অনলাইনে তার জন্যে স্ক্রাস অর্ডার দিয়েছিলাম আজ পেয়েছি, সে আজ খুব খুশি হয়েছে স্ক্রাস টা পেয়ে কারন ২ মাস পর আজ সে নিজের পায়ে হাটতে পেরেছে তার খুশি দেখে আমিও খুশি। তার খাওয়া থেকে শুরু করে সব কিছুই আমাকে দেখতে হয় আর এই দায়িত্বের কারনে গত এক মাস আমি কোথাও যাইনি, অনেকেই আমাকে ইফতারের দাওয়াত দিয়েছে রাজনৈতিক প্রোগ্রামে যোগদান করার জন্যেও দাওয়াত দিয়েছে কিন্তু আমি যেতে পারিনি৷ সারাদিন ইউনিভার্সিটি থেকে এসে সন্ধায় নিজের জন্য না হলেও তার জন্যে রান্না করতে হয়। রাজনীতির অর্থ যদি মানবসেবা হয় তাহলে সেটা আমি করছি এবং সারাজীবন করার চেষ্টা করব ইনসাল্লাহ। সবাই তার জন্যে দোয়া করবেন যেন দ্রুত স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে পারে এবং উপার্জনের মাধ্যমে বাবা মা কে সহযোগিতা করতে পারে।
এম কবিরুজ্জামান জীবনের ফেসবুক থেকেঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*