সর্বশেষ

মেসেঞ্জার ব্যবহারে বাধ্য করছে ফেসবুক

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকের মোবাইল ওয়েবসাইটে বার্তা আদান-প্রদানের সুযোগ থাকলেও শিগগিরই তা বন্ধ কর দেওয়া হচ্ছে। অনেকটা বাধ্য হয়েই আলাদাভাবে ব্যবহার করতে হবে মেসেঞ্জার অ্যাপ। তবে ফেসবুকের মূল ওয়েবসাইটে বার্তা পাঠানোর সুবিধা চালু থাকছে। মেসেঞ্জারের জনপ্রিয়তা বাড়াতেই এই উদ্যোগ।

নতুন এই পরিবর্তনের কথা নোটিফিকেশনের মাধ্যমে সব ব্যবহারকারীকে ধীরে ধীরে জানিয়ে দিচ্ছে ফেসবুক। আবার কিছু কিছু মুঠোফোনে মেসেঞ্জার ইনস্টলের জন্য স্বয়ংক্রিয়ভাবেই গুগল প্লে-স্টোর চালু হয়ে যাচ্ছে। এসব অবশ্য মোবাইল ওয়েবসাইটের ক্ষেত্রেই। ফেসবুকের অ্যাপে বার্তা পাঠানোর সুবিধা আগে থেকেই বন্ধ করা হয়েছে।
এদিকে প্রযুক্তিবিষয়ক ওয়েব পোর্টাল টেকক্রাঞ্চের বিশেষজ্ঞ ডেভিন কোল্ডওয়ে ফেসবুকের এই সিদ্ধান্তকে ‘বৈরী আচরণ’ বলে অভিহিত করেছেন। তিনি লিখেছেন, ‘নিশ্চিতভাবেই অ্যাপটি না নামানোর পেছনে মানুষের যথেষ্ট কারণ আছে।’ কিছু ব্যবহারকারীর অভিযোগ, মেসেঞ্জার অ্যাপটি ব্যবহার করলে স্মার্টফোনের ব্যাটারির চার্জ দ্রুত ফুরিয়ে যায়। এর সঙ্গে ব্যক্তিগত নিরাপত্তার বিষয়টিও জড়িত।
তবে প্রযুক্তি বিশ্লেষক মার্টিন গার্নার বিবিসিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ফেসবুকের সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানিয়ে বলেন, ‘এই পদক্ষেপের মাধ্যমে বোঝা গেল ফেসবুকের জন্য মেসেঞ্জার কতটা গুরুত্বপূর্ণ। অভিযোগ থাকা সত্ত্বেও, মানুষ একটা সময় এতে অভ্যস্ত হয়ে পড়বে। এখন ফেসবুকের উচিত অ্যাপটি যাতে আরও উন্নত হয় এবং ব্যাটারি যেন দ্রুত শেষ হয়ে না যায়, সেদিকে লক্ষ রাখা।’

(Visited 1 times, 1 visits today)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*