সর্বশেষ

হঠাৎ অনেক রক্তচাপে কি করবেন?

হঠাৎ অনেক রক্তচাপে কি করবেন?

  • রক্তচাপ বাড়লে অযথা তেঁতুলগোলা খাইয়ে সময় নষ্ট করবেন না
  • গর্ভাবস্থায় রক্তচাপ অতিরিক্ত বেড়ে গেলে খিঁচুনি,রক্তক্ষরণ হতে পারে
  • চিকিৎসকের কাছে বা হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নেওয়াই প্রথম কাজ

খারাপ লাগা বা অস্বস্তি বোধ থেকে চিকিৎসকের কাছে বা ফার্মেসিতে রক্তচাপ মাপাতে গেছেন। আবার কোনো কারণ ছাড়াই রক্তচাপ মাপলেন। এ সময় মিটারে পারদ দেখা গেল বিপজ্জনকভাবে বেশি। এমন ঘটনা প্রায়ই ঘটে। আপনি হয়তো জানেনই না যে আপনার রক্তচাপ শুধু বেশি নয়, এমন হারে বেশি, যা যেকোনো মুহূর্তে বিপদ ঘটিয়ে ফেলতে পারে। সাধারণত ১৮০/১২০ মিমি পারদের বেশি রক্তচাপ দেখা দিলে এমন আশঙ্কাজনক পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। এ জন্য একে ম্যালিগনেন্ট হাইপারটেনশন বলে। আশ্চর্যের বিষয়, এত রক্তচাপের পরও রোগী একেবারেই উপসর্গহীন থাকতে পারেন।

তবে হঠাৎ রক্তচাপ বিপজ্জনক মাত্রায় বেড়ে গেলে কিডনি, চোখ, মস্তিষ্ক, হৃদ্‌যন্ত্র ইত্যাদি গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গের ক্ষতি করে ফেলতে পারে। কিছু কিছু সমস্যা দেখা দিতে পারে রোগীর। যেমন চোখে ঝাপসা দেখা, মাথাব্যথা, বমিভাব বা বমি, কথা জড়িয়ে যাওয়া, কোনো অঙ্গ অবশ মনে হওয়া, বুকে চাপ ধরা, শ্বাসকষ্ট, প্রস্রাবের রং লাল হওয়া, প্রস্রাব কম হওয়া ইত্যাদি। কখনো নাক দিয়ে রক্ত পড়তে পারে। গর্ভাবস্থায় রক্তচাপ অতিরিক্ত বেড়ে গেলে খিঁচুনি, শরীরে পানি আসা, রক্তক্ষরণ হতে পারে। এ ধরনের পরিস্থিতিতে বাড়ির লোকেরা কী করবেন?

■ ঘাবড়ে যাবেন না। রোগীকে আশ্বস্ত করুন। কারণ, টেনশনে বা ভয়ে আরও রক্তচাপ বাড়তে পারে। অযথা মাথায় পানি ঢেলে, তেঁতুলগোলা খাইয়ে সময় নষ্ট করবেন না। চিকিৎসকের কাছে বা হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নেওয়াই প্রথম কাজ।

■ খুব ধীরে ধীরে রক্তচাপ কমানোর উদ্যোগ নিতে হবে। দ্রুত রক্তচাপ কমাতে গেলে মস্তিষ্কে রক্তপ্রবাহ কমে গিয়ে বিপদ হতে পারে। প্রথম ঘণ্টায় ২৫ শতাংশের বেশি কমানো উচিত নয়। ২৪ থেকে ৪৮ ঘণ্টা পর্যবেক্ষণে রেখে কমানো উচিত। তাই তাড়াহুড়া না করে চিকিৎসকের কথায় আস্থা রাখুন ও ধৈর্য ধরুন।

■ হঠাৎ অতিরিক্ত উচ্চ রক্তচাপের পেছনে কোনো কারণ থাকতে পারে। যেমন কিডনির রোগ, হরমোনজনিত জটিলতা, টিউমার, হৃৎপিণ্ডের জন্মগত ত্রুটি, কোনো ওষুধ ইত্যাদি। তাই রক্তচাপ স্বাভাবিক হয়ে আসার পর কিছু পরীক্ষা–নিরীক্ষার প্রয়োজন হবে।

■ যাঁরা নিয়মিত রক্তচাপের ওষুধ খান, তাঁরা চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া কখনো হঠাৎ ওষুধ ছেড়ে দেবেন না বা কমিয়ে দেবেন না।

■ গর্ভাবস্থায় হঠাৎ রক্তচাপ বেড়ে গিয়ে একলাম্পশিয়া, খিঁচুনি হয়ে মায়ের জীবন বিপন্ন হতে পারে। তাই গর্ভাবস্থায় নিয়মিত রক্তচাপ মাপা জরুরি।
ডা. শরদিন্দু শেখর রায়, হৃদ্‌রোগ বিশেষজ্ঞ, জাতীয় হৃদ্‌রোগ ইনস্টিটিউট ও হাসপাতাল

(Visited 1 times, 1 visits today)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Research Publishing Academy in the UK
Research Publishing Academy in the UK